সর্বশেষ :
Thu, 21 Sep, 2017

 
না’গঞ্জ নগরীতে অবরোধ দিন মজুরদের অভাবের সাথে বসবাস কর্মহীন মানুষগুলো এখন অসুস্থ রাজনীতির শিকার, শ্রম হাট কর্মহীন।। সংসার প্রায় তছনছ
Wednesday, 28 January 2015 21:54

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট এনগঞ্জ ২৪ ডকটম: টানা অবরোধ আর হরতালে নারায়ণগঞ্জ নগরীর শ্রমের হাটের দিন মজুর ও নিন্ম আয়ের মানুষদের যাপিত জীবন এখন অর্বননীয় দুর্বিসহ হয়ে ওঠেছে। কাজের অভাবে দিন মজুরদের সংসার প্রায় তছনছ। নিন্ম আয়ের মানুষের সামান্য সঞ্চয়ও প্রায় শেষ। হা ভাতের আগ্রাসন এসে তাদের ললাটের লিখন হয় এই তাড়িত চিন্তা ভর করেছে তাদের। অবরোধ আর হরতালের কর্মসূচি মিলিয়ে চলছে এখন ২৩ দিন। এই ভয়াবহ দুর্বিপাকের ফলে দিন মজুরদের জীবন থেকে হারিয়ে গেল উপার্জনের উৎস সমূহ। আর নিন্ম আয়ের মানুষের জীবন হলো বিষময়। নগরীর শ্রম হাটে কর্মহীন মলিন মুখের কাজের সন্ধানে থাকা মানুষ গুলোর যেন আর অপেক্ষার শেষ নেই। অধরাই থেকে যাচ্ছে কাজ। সংসারে চুলা না জ্বলায় গোটা পরিবার সমেত এখন তাদের জীবন অর্ধাহারে অনাহারে। আর নিন্ম আয়ের মানুষ গুলো সংসারে চাহিদা মেটাতে না পেরে গহীন চাপা দীর্ঘশ্বাসের মধ্য দিয়েই চলছে। এই হতভাগা মানুষ গুলোর জীবন এখন রাজনীতির দ্বন্ধে দগ্ধ। এরা কেন অভুক্ত থাকছে দিন দিন, প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে দেশের অসুস্থ রাজনীতি। এই অসুস্থ রাজনীতির চর্চা দেশের দীর্ঘকালে ট্রাডিশন, যা থেকে বেরিয়ে আসার উদ্যোগ কখনোই আশা জাগানিয়া হয় নি।

নারায়ণগঞ্জ নগরীর প্রধান প্রধান শ্রম হাটে দিন মজুররা এখন কর্মহীন হয়ে অলস জীবন যাপন করছে। পেটের দায়ে নিত্যদিনের মত এরা ছুটে আসে শ্রম হাটে কিন্তু কাজ না পেয়ে ফিরে যায়। অবরোধের আগে শ্রম হাটের চিত্রটা ছিল, সকাল ৭টা থেকে ৮টার মধ্যে হাটে আসা সব দিন মজুর পেয়ে যেত কাজ। এখন কর্মহীন, সঞ্চয় নেই, চলে না সংসার, চিকিৎসা করানোর নেই কোন সম্বল। অবরোধ কর্মসূচি শুরু হওয়ার পর তাদের কোন রকম জোড়া তালি দেয়া সাজানো সংসার এখন প্রায় তছনছ হয়ে যাচ্ছে। কর্মহীন থেকে অনেকেই চলে যেতে শুরু করেছে গ্রামের বাড়ি স্ত্রী আর সন্তান নিয়ে। কাজ না পাওয়া শ্রম হাটের মানুষগুলোর প্রশ্ন তাদের জীবিকা বন্ধ করে দেশে এ কোন রাজনীতি? তারা মূর্খ কোন রাজনীতি করে না, তাহলে তাদের কেন এ রাজনীতির বলি হতে হবে?

সমাজ বিশ্লেষকদের মতে, শ্রমের হাটে আসা মানুষ গুলো এসেছে গ্রাম থেকে। থাকে শহরের অস্বাস্থ্যকর বস্তিতে। দিনের রোজগারে চলে এদের সংসার। এদের নেই কোন বিনোদন। সন্ধ্যায় ঘরে ফিরে সাধ্য মত সংসারের নিত্য পণ্য কিনে। জ্বলে চুলা, এরপর ক্ষুধা নিবারণ। কারো কারো সখ হলে বস্তির চায়ের দোকানের টেলিভিশন দেখে কিছুটা সময়। এসময় চায়ের সাথে সিগারেট ফুঁকে সম গোত্রীয়দের সাথে হয় সংসার আর ভবিষ্যৎ নিয়ে নানা কথা। একটা সময়ে ওঠে বাড়ি ফিরে ঘুমে। ভোরে জেগে আবার ছুটতে হয় শ্রমের হাটে। এখন অবরোধ এদের প্রতিদিনের নিয়ম পাল্টে দিয়ে বড় বেশি করেছে কর্মহীন। অভাবের আগ্রাসী থাবায় এরা যন্ত্রণাবিদ্ধ হয়ে অপেক্ষায় থাকে আবার কবে শ্রমের হাটে-বিক্রি হবে এদের শ্রম।

নগরীর নিন্ম আয়ের মানুষ গুলোর ঠিক দিন মজুর না হলেও অন্য প্রক্রিয়ার শ্রমজীবী। এদের দিন যাপন প্রক্রিয়াও আছে এই অভাব নামের আতংক। এই নিন্ম আয়ের মানুষগুলো আটা-ময়দা মিলের শ্রমজীবী, সুতা আর রং এর ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের দিন ভিত্তিক রোজগারী। অবরোধে সহিংসতায় ভয়ে পরিবহন সংকটে ক্রেতা নেই সুতা, রং আর আটা-ময়দার বাজারে। ফলে এদের আয়ের পথে এখন সংকট। এরা কেউ কেউ সঞ্চয়ে হাত দিচ্ছে আবার কেউ ধার-দেনায় কোন রকম চালিয়ে যাচ্ছে সংসার। সব মিলিয়ে অবরোধ আর হরতাল নগরীর দিন মজুর আর নিন্ম আয়ের মানুষগুলোকে এখন পরিনত করেছে অভাবমুখী। এভাবেই কাটছে তাদের দিন রাত্রির যত সব দুঃখ জাগানিয়া প্রহর।

 

এনগঞ্জ২৪ ডট কমে প্রকাশিত/প্রচারিত যে কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট অনুমতি সাপেক্ষে ব্যবহার করা যাবে।

সকল শিরোনাম
 
 

সম্পাদক : এস এম ইকবাল রুমি
বার্তা ও বাণিজ্যিক কাযার্লয় : ইয়াজ উদ্দিন ভবন (৪র্থ তলা), এ.সি ধর রোড, কালীর বাজার, নারায়ণগঞ্জ- ১৪০০।

নিউজ রুমঃ ০১৯৮১৬০৯২৫১, ০১৭৭৭৪১২৭৪৪ ই-মেইলঃ nganj24editor@gmail.com